জীবন-সৈকতে


ক্লান্ত যমুনার বিস্তীর্ণ চরে,
বালুকা করিছে খেলা, রক্ত-রবি-বরে;
অব‍্যক্ত যন্ত্রণা বাজে সমুদ্র-গর্জনে,
কালীর তাণ্ডবনৃত‍্যে পাখি ফেরে ঘরে |

ধীবর-জালিকা কাঁপে মীনের ক্রন্দনে,
গরল তরল হয় মোহিনীর তীরে;
শুক-সারী তর্কে আজ গোধূলির বেলা,
রঙিন আলোকে ভাসে বিদুর অভিসারে |

দূরের আকাশে জাগে চন্দ্রিমার ছায়া,
সত্ত্বার ভগ্নাংশ হাতে নগ্ন গৌরবে;
গগনের তারা হয়ে অক্লান্ত স্বস্তিতে,
ঘুরে চলে জীবনের বৃত্ত মাঝে রেখে ||

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *